করোনা সংকটে অনলাইনে জরুরি ওষুধ

নিজস্ব প্রতিনিধি। দৈনিক শিক্ষাবার্তা : ১৯ মে, ২০২০।

0
40

করোনা সংকটে অনলাইনে জরুরি ওষুধকরোনা সংকটে অনলাইনে জরুরি ওষুধ সরবরাহ করছে বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে পুরো বিশ্বই বলতে গেলে অবরুদ্ধ। বিশ্বের পাশাপাশি দেশের মানুষও ঘরবন্দি। এ সময়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ও সেবার জোগান নিশ্চিতে অন্যতম মাধ্যম ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো। দেশের শীর্ষ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো প্রাত্যহিক প্রয়োজনীয় নানা পণ্য ও সেবার মধ্যে জরুরি ওষুধও বিক্রি করছে। অনলাইন ডাক্তার সেবার পাশাপাশি এবার এসেছে অনলাইন ওষুধ ডেলিভারি।

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি অনেক ফার্মেসিও তাদের সেবা নিয়ে এসেছে অনলাইনে। ফলে ঘরে বসে থেকেই ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম থেকে খুঁজে নিতে পারেন আপনার কাঙ্ক্ষিত ওষুধ।জরুরি পণ্যের তালিকায় ওষুধ শীর্ষস্থানে রয়েছে। এ জন্য লকডাউনে শিল্প-কলকারখানা বন্ধ থাকলেও খোলা থাকে ফার্মেসি তথা ওষুধের দোকান। বাসাবাড়ির অদূরেই মেলে ওষুধের দোকান। কিন্তু অনেক সময় এসব দোকানে প্রয়োজনীয় ওষুধ পাওয়া যায় না। আবার অনেকে একেবারেই ঘর থেকে বের হচ্ছেন না। তাদের জন্য কাঙ্ক্ষিত বিকল্প হতে পারে অনলাইন প্ল্যাটফর্ম। অনলাইনে জরুরি ওষুধ অর্ডার করে তা ঘরে বসেই পেতে পারেন অনায়াসে।

ইভ্যালি

খুব অল্প সময়ের মধ্যে আমাদের দেশের ই-কমার্সে অনেক বড় পরিবর্তন এনেছে ইভ্যালি। অনলাইন মার্কেটপ্লেসটি দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে সবার কাছে গ্রোসারি আইটেম পৌঁছে দিতে চালু করে ‘এক্সপ্রেস শপ’। এবার নিয়ে এসেছে ‘ইভ্যালি এক্সপ্রেস ফার্মেসি’। ঢাকায় রয়েছে তাদের ১৫টি এক্সপ্রেস ফার্মেসি, যেখান থেকে পুরো ঢাকাবাসী তাদের প্রয়োজনীয় ওষুধটি পাবে। রাজধানী ঢাকা ছাড়াও দেশের ২৫টির বেশি জেলায় এ সেবাটি চালু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। ঢাকার বাইরে বর্তমানে চালু হয়েছে খুলনা, সিলেট, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চুয়াডাঙ্গা, কুমিল্লা, ফেনী, গাজীপুর, হবিগঞ্জ, ঝালকাঠি, ঝিনাইদহ, কিশোরগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর, মানিকগঞ্জ, মৌলভীবাজার, পাবনা, পটুয়াখালী, শেরপুর, টাঙ্গাইল এবং ঠাকুরগাঁও। এ ছাড়াও আরও কিছু জেলায় চালুর উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। সর্বনিম্ন এক ঘণ্টা থেকে সর্বোচ্চ ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে পণ্য গ্রাহকদের বাসায় পৌঁছে দেওয়া হবে এসব এক্সপ্রেস ফার্মেসি থেকে।

দারাজ

ডিফার্মা নামে একটি ক্যাটাগরি রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির, যেখানে শুধু প্রয়োজনীয় ওষুধ রয়েছে। তাদের স্টোর থেকে প্রয়োজনীয় ওষুধ অর্ডার করলেই পৌঁছে যাবে আপনার ঠিকানায়। তবে এক্ষেত্রে সাত দিন সময় নিয়ে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। দারাজের বিভিন্ন প্রমোশন বা ডিসকাউন্ট ওষুধের ক্ষেত্রে কার্যকরী নয়। তবে ওষুধ ডেলিভারি দিচ্ছে না প্রতিষ্ঠানটি।

সহজ

সহজ অ্যাপে মিলছে প্রয়োজনীয় ওষুধ। অ্যাপে ঢুকে এরিয়া সিলেক্ট করে দিলেই আশপাশে থাকা ওষুধ স্টোরগুলো যুক্ত হবে এখানে। আপনার পছন্দমতো স্টোর থেকে কিনতে পারবেন প্রয়োজনীয় ওষুধ। বিকাশ, কার্ড বা ক্যাশে মূল্য পরিশোধের সুযোগ রাখছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে এক্ষেত্রে গুনতে হবে ১০০ টাকা ডেলিভারি চার্জ।

পাঠাও

এলাকাভিত্তিক মেডিসিনের স্টোর মিলবে পাঠাওয়ে। পাঠাও অ্যাপে ঢুকলেই ‘ফার্মা’ নামে একটি অপশন পাবেন। সেখানে ক্লিক করলেই মিলবে এসব ফার্মেসি স্টোর। পাঠাও ফুডের পরে গ্রোসারি আইটেমের জন্য ‘টং’ এবং ওষুধের জন্য ‘ফার্মা’ আনে প্রতিষ্ঠানটি। এখানে যুক্ত রযেছে ত্রিশটির অধিক ফার্মেসি। এ ছাড়া চট্টগ্রামে রয়েছে নয়টির মতো স্টোর। ওষুধের মূল্য কার্ড বা ক্যাশে পরিশোধ করা যাবে। হোম ডেলিভারির ক্ষেত্রে গুনতে হবে ১০০ টাকা। ডেলিভারির পুরো টাকাই ডেলিভারিম্যানকে দিয়ে দেয় পাঠাও। এমনকি ওষুধেও রাখা হয় না বাড়তি চার্জ।

ফুডপান্ডা

ঢাকাসহ দেশের ২৫টি সিটিতে বিনামূল্যে ওষুধ ডেলিভারি দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। এরই মধ্যে তাদের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে শতাধিক ফার্মেসি। ফুডপান্ডার অ্যাপ বা ওয়েবসাইটে ঢুকে অর্ডার দেওয়া যাবে যে কোনো প্রয়োজনীয় ওষুধ। আর মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন কার্ড বা অনলাইন গেটওয়ে বা ক্যাশে।

গোমেড কিট

গ্রাহকের কাছে অনলাইনে জরুরি ওষুধ পৌঁছে দিতে কাজ করছে অনলাইনভিত্তিক ওষুধ ডেলিভারি পল্গ্যাটফর্ম গোমেড কিট। ওয়েবসাইটের পাশাপাশি স্মার্টফোনভিত্তিক অ্যাপস এ কাজ করবে গোমেড কিট। বর্তমানে শুধু ঢাকায় ২৪ ঘণ্টা কার্যক্রম পরিচালনা করছে গোমেড কিট। তাদের সেবাটি গুলশান, উত্তরা, ধানমণ্ডি, মোহাম্মদপুর, বাড্ডা, বসুন্ধরা, মতিঝিল এবং খিলগাঁওয়ে চালু রয়েছে।

আর এক্স মেডিসিন

দেশের এমন দুর্যোগকালে মানুষের পাশে সেবা আর সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে উত্তরার আর এক্স মেডিসিন নামের একটি ফার্মেসি। আর এক্স মেডিসিন ঢাকার উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টরে অবস্থিত। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে লোকজনকে যেন জরুরি ওষুধের প্রয়োজনে বাইরে না আসতে হয় এবং বাইরে আসাকে নিরুৎসাহিত করতে প্রয়োজনীয় ওষুধ বাসায় হোম ডেলিভারি দিচ্ছে এই ফার্মেসিটি। শুধুমাত্র উত্তরায় নয়, ঢাকাসহ সমগ্র বাংলাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে জরুরি ওষুধ ডেলিভারি করছে তারা। নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করেও রোগী যেন তার প্রয়োজনীয় ওষুধ নির্বিঘ্নে পেয়ে যায়, এটি নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছে আর এক্স মেডিসিন ও তার পুরো টিম।

ওষুধ ডটকম

অনলাইনে জরুরি ওষুধ অর্ডার করলেই ঘরে পৌঁছে দেবে ওষুধ ডটকম। নিজেদের প্রয়োজনীয় ওষুধ ওয়েবসাইট থেকে বাছাই ছাড়াও প্রেসক্রিপশনের ছবি আপলোড করে ক্রেতারা এই অনলাইন মাধ্যম ওষুধ ডটকম (osudh.com) থেকে কেনাকাটা করতে পারবেন। Online farmaci ওয়েবসাইট ছাড়াও হটলাইন নম্বরে (০১৬৭১৯৬৮৭৭৭) ফোন করে ২৪ ঘণ্টা অর্ডার করা যাবে। পাঁচশ’ টাকার বেশি ওষুধ অর্ডার করলেই ডেলিভারি চার্জ ছাড়াই বাড়ি পৌঁছে দেবে প্রতিষ্ঠানটি।

ফার্মেসি ডটকম ডটবিডি

ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ওষুধ সরবরাহ করে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। ওয়েবসাইট ছাড়াও হটলাইন নম্বরে (০১৯৯৯৯৯৭৬০৩-৫) ফোন করে ২৪ ঘণ্টা ওষুধের অর্ডার করা যায় এখানে। তবে সেগুলো ডেলিভারি চার্জ ছাড়াই বাড়ি পৌঁছে দেবে প্রতিষ্ঠানটি। নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে লগ ইন করতে হবে। তারপর প্রয়োজনীয় ওষুধগুলোর লিস্ট করে অর্ডার দিতে হবে। ব্যস, বাকিটা শুধুমাত্র সময়ের ব্যাপার। কলিং বেলের শব্দ শুনুন, ওষুধ গ্রহণ করুন, তারপর মূল্য পরিশোধ করুন।

ঢাকা ফার্মা ডটকম

অনলাইনে ওষুধ অর্ডার করলেই পৌঁছে যাবে আপনার বাসায়। তাদের স্টোরটি রামপুরা হলেও পুরো ঢাকাতেই ওষুধ ডেলিভারি করে প্রতিষ্ঠানটি। তাদের ওয়েবসাইটে আপনার প্রেসক্রিপশন আপলোড করলেই হবে। অথবা ফোন করেও জানিয়ে দিতে পারেন আপনার প্রয়োজনীয় ওষুধের নাম। ক্যাশঅন ডেলিভারি বা বিকাশের মাধ্যমেও মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন। ওয়েবসাইট dhakapharma.com বা ফোন (০১৫১১৫৫১১৩৩) নম্বরে কল করে ওষুধ অর্ডার দিতে পারেন।

লার্জফার্মা ডটকম

ওষুধ বিকিকিনির অনেক বড় একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিত লার্জফার্মা। অফলাইন স্টোরের পাশাপাশি অনলাইন ডেলিভারি দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। তাদের ওয়েবসাইটে গিয়ে অর্ডারে ক্লিক করে ওষুধের নাম এবং পরিমাণ দিয়ে অর্ডার প্লেস করলেই আপনার ঠিকানায় ওষুধ চলে আসবে। ঢাকার জন্য ডেলিভারি চার্জ ৮০ টাকা এবং ঢাকার বাইরে যে কোনো জেলায় পৌঁছে দিচ্ছে মাত্র ১২০ টাকায়। ওষুধ পেতে ওয়েবসাইট (www.lazzpharma.com) বা ফোন (০১৩১৯৮৬৪০৪৯) নম্বরে কল করা যাবে।

ডায়াবেটিস স্টোর

ডায়াবেটিস রোগীদের প্রয়োজনীয় ওষুধ এবং পরীক্ষার যন্ত্র পাওয়া যায়। এখানে রয়েছে তাদের বিভিন্ন মেডিসিন, ইনসুলিন, গ্লুকোজ এবং সুগার মনিটর ডিভাইস, ডায়াবেটিস রোগীর খাবারসহ অনেক কিছু। এ ছাড়া রয়েছে বেবি কেয়ার, হেলথ কেয়ার, ওমেন কেয়ারসহ বিভিন্ন ধরনের পণ্য। অনলাইন ডেলিভারির ক্ষেত্রে ঢাকার ভেতরে ৭০ টাকা এবং ঢাকার বাইরের জন্য কুরিয়ার চার্য পরিশোধ করতে হবে। ওয়েবসাইট  (diabetesstore.com.bd)।

তামান্না ফার্মেসি

ঢাকার গুলশান, মিরপুর, বসুন্ধরা ও উত্তরা থাকা নিজস্ব স্টোরের পাশাপাশি ফোন কল (০১৩০০৮৭১৪৪১) বা হোয়াসঅ্যাপ, ভাইবার এবং ইমোর মাধ্যমে অর্ডার করলে বাসায় পৌঁছে দেবে ওষুধ। এমনটাই জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার আনোয়ার হোসেন বেলু। আপনার প্রয়োজনীয় সব ধরনের দেশি-বিদেশি ওষুধসহ ডাক্তারদের জন্য পিপিই এবং মাস্ক মিলবে এখানে। এ ছাড়া পাঠাও অ্যাপে মিলবে তামান্না ফার্মেসির স্টোর।

আপনার মন্তব্য

আপনার মতামত দিন
আপনার নাম