অবশেষে নতুন পাসপোর্টের আবেদন জমা নেওয়া শুরু।

নিজস্ব প্রতিনিধি : দৈনিক শিক্ষাবার্তা।

0
130
অবশেষে নতুন পাসপোর্টের আবেদন জমা নেওয়া শুরু।
প্রতীকি ছবি

করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে প্রায় পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর আবশেষে নতুন পাসপোর্টের আবেদন জমা নেওয়া শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) এবং ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট বা ই-পাসপোর্টের নতুন আবেদনপত্র জমা নেওয়া শুরু হয়েছে। তবে রোববার থেকে দেশের সব পাসপোর্ট অফিসে এই আবেদনপত্র জমা নেওয়া হবে।

অবশেষে নতুন পাসপোর্টের আবেদন জমা নেওয়া শুরু।
প্রতীকি ছবি

পাসপোর্ট অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, করোনাভাইরাস রোধে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জারি করা সব স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে এমআরপি এবং ই-পাসপোর্টের এনরোলমেন্ট কার্যক্রম পরিচালিত হবে। নতুন পাসপোর্টের জন্য আবেদন নেওয়ার পাশাপাশি রি-ইস্যু কার্যক্রমও অব্যাহত থাকবে। এরই মধ্যে এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি হয়েছে।



পাসপোর্ট অধিদপ্তরের একজন কর্মকর্তা দৈনিক শিক্ষাবার্তার প্রতিনিধি কে বলেন, অফিস আদেশে অবিলম্বে বিষয়টি কার্যকরের কথা বলা হলেও আগামী রোববার থেকেই সীমিত পরিসরে কার্যক্রম শুরু হবে।

করোনাভাইরাসের কারণে গত ২৩ মার্চ থেকে এমআরপি এবং দেশে নতুনভাবে চালু হওয়া অত্যাধুনিক ই-পাসপোর্টের আবেদন জমা নেওয়া বন্ধ থাকে। রি-ইস্যুর জন্য (মেয়াদ বৃদ্ধি) পাসপোর্টের আবেদন জমা নেওয়া কার্যক্রম চললেও বিতরণ কার্যক্রমে ধীরগতি শুরু হয়। করোনা সংকট শুরুর আগে গত জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি মাসে জমা নেওয়া আবেদনের বিপরীতেও পাসপোর্ট বিতরণ কার্যক্রম ধীরে চলতে থাকে। এতে পাসপোর্ট প্রত্যাশী হাজার হাজার মানুষ বিপাকে পড়েন। পাসপোর্ট পেতে বড় জটের শঙ্কার সৃষ্টি হয়।

এসব বিষয় নিয়ে গত ১৭ আগস্ট সমকালে ”পাসপোর্টের ‘খবর’ নেই: চার মাস ধরে আবেদন নেওয়াই বন্ধ, কবে শুরু হবে তাও অনিশ্চিত” শিরোনামে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এর দু’দিনের মাথায় আগের আদেশ বাতিল করে সীমিত পরিসরে নতুন পাসপোর্টের আবেদন জমা নেওয়ার কথা জানালো অধিদপ্তর।

ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের পরিচালক (পাসপোর্ট, ভিসা ও পরিদর্শন) মো. সাইদুর রহমান দৈনিক শিক্ষাবার্তা কে বলেন, ‘করোনাভাইরাস থাকলেও জীবনযাত্রা স্বাভাবিক হয়ে আসছে। পাসপোর্ট প্রত্যাশীদের কথা চিন্তা করে, নতুন বাস্তবতার বিষয়টি মাথায় রেখে সীমিত পরিসরে এনরোলমেন্ট কার্যক্রম শুরু করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের জারি করা স্বাস্থ্যবিধি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে পালন করা হবে।’

সীমিত পরিসরে কার্যক্রমে দৈনিক কতোগুলো আবেদন জমা নেওয়া হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তা সংশ্লিষ্ট পাসপোর্ট অফিসগুলো বাস্তবতা বিবেচনা করে ঠিক করে নেবে।

অধিদপ্তর সূত্র গণমাধ্যম কে জানায়, নতুন পরিস্থিতিতে পাসপোর্ট সেবা কার্যক্রম চালুর করণীয় ঠিক করতে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের ডিজি মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আইয়ূব চৌধুরী কর্মকর্তাদের সঙ্গে গত কয়েকদিন ধরে বৈঠক করেন। এমআরপি ও ই-পাসপোর্ট প্রকল্পের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে করোনাভাইরাস সংকটের মধ্যেও সাধারণ মানুষের কথা মাথায় রেখে সীমিত পরিসরে কার্যক্রম চালানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আপনার মন্তব্য

আপনার মতামত দিন
আপনার নাম