অবসাদ দূর করে গলদা চিংড়ি কথাটি এখন বৈজ্ঞানিকভাবে স্বীকৃত। গলদা চিংড়ি শুধু স্বাদে নয়, পুষ্টিগুণেও ভরপুর। এটা স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী। গলদা চিংড়িতে থাকা সেলেনিয়াম, খনিজ শরীরের বিভিন্ন সেল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া থেকে রক্ষা করে। সেলেনিয়াম শরীরকে ফ্রি রেডিকেল থেকে সুরক্ষা করে যা হৃদরোগ ও ক্যান্সারের অন্যতম কারণ।অবসাদ দূর করে গলদা চিংড়ি

এ মাছে থাকা ওমেগা থ্রি ও ওমেগা সিক্স সমৃদ্ধ ফ্যাটি অ্যাসিড রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ নিয়মিত করে। উচ্চ ঘনত্বের লিপোপ্রোটিন বা খারাপ কোলেস্টেরল তখনই কমে যখন উচ্চ ঘনত্বের লিপোপ্রোটিন বা ভালো কোলেস্টেরল বৃদ্ধি পাবে।

গলদা চিংড়িতে থাকা কোলেস্টেরল শরীরে ভালো কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়ায়। এ কারণে এটি হৃদরোগের জন্য উপকারী। এ চিংড়ি খেলে মানসিক স্বাস্থ্য ভালো থাকে। এতে থাকা ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড হতাশা, অবসাদসহ নানা ধরনের মানসিক রোগ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে।

গলদা চিংড়ি প্রস্টেট ও ফুসফুসের ক্যান্সার নিয়ন্ত্রণেও ভূমিকা রাখে। এ চিংড়ির পুষ্টিগুণ সম্পূর্ণভাবে পেতে এটি সঠিক পদ্ধতিতে রান্না জরুরি। অতিরিক্তি ও লবণ দিয়ে এই খাবার রান্না করা ঠিক নয়। (সূত্র : হেলদিবিল্ডার্জড)