নিজস্ব প্রতিবেদক, দৈনিক শিক্ষাবার্তা:

বিতর্কিত রাজাকার তালিকায় ইস্যুতে দুঃখ প্রকাশ করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

গত রোববার প্রকাশিত ওই তালিকায় অনেক মুক্তিযোদ্ধাদেরও নাম এসেছে। এ নিয়ে অনলাইন পত্রিকা ও সোশাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার পর ক্ষমা চাইলেন মন্ত্রী।

মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এই ঘটনার দায় নিজের কাঁধে নিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করেন তিনি।

মোজাম্মেল হক বলেন, ‘রাজাকারদের তালিকায় মুক্তিযোদ্ধাদের নাম আসায় আমি অত্যন্ত দুঃখিত। আমার নাম ওই তালিকায় থাকলেও আমারও খারাপ লাগতো। যেসব মুক্তিযোদ্ধার নাম এই তালিকায় এসেছে তাদেরও তেমনি খারাপ লেগেছে।’

এই ঘটনার পুরো দায় আমি নিজের কাঁধে নিচ্ছি এবং এর জন্য আমি ক্ষমা প্রার্থনা করছি বলেও মন্ত্রী বলেন।

তিনি বলেন, বেশ কয়েকটি অভিযোগ ইতোমধ্যে আমাদের হাতে এসেছে। অভিযোগ ব্যাপকভাবে হলে তালিকা প্রত্যাহার করা হবে।

ক্ষমা চাইলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

তিনি  সাংবাদিকদের জানান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে রাজাকারদের যে তালিকা পেয়েছি, সেটা প্রকাশ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, রোববার রাজাকারদের প্রাথমিক তালিকার প্রথম পর্ব প্রকাশ করা হয়। যাতে ১০ হাজার ৭৮৯ জনের নাম রয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক তার মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তালিকা প্রকাশ করেন। তবে তালিকা প্রকাশের পরই তালিকায় কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধার নাম থাকার অভিযোগ ওঠে।