রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট টেকনিক্যাল অ্যান্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ইন্সটিটিউটের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. আশরাফ আলীর বিরুদ্ধে জাল শিক্ষক নিবন্ধন সনদ ব্যবহার ও এমপিওভোগের অভিযোগ উঠেছে।জাল সনদে ১০ বছর এমপিওভোগ

অভিযোগটি আমলে নিয়ে তার সনদটি যাচাই করতে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের অফিসে পাঠিয়েছে কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর।

জানা যায়, প্রতিষ্ঠানটিতে নিয়োগ পেয়ে ২০১০ খ্রিষ্টাব্দ থেকে অবৈধভাবে জাল সনদে এমপিওভোগ করছেন তিনি। অধিদপ্তর সূত্র এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে।

তবে মো. আশরাফ আলী দাবি করেছেন, তার শিক্ষক নিবন্ধন সনদটি ২০০৮ খ্রিষ্টাব্দের। যা নিয়ে তিনি পোল্ট্রি রিয়ারিং অ্যান্ড ফার্মিং বিষয়ের ট্রেড ইন্সট্রাক্টর পদে যোগদান করেছিলেন। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে কর্মরত আছেন। অভিযোগ আছে তিনি জালিয়াতি করে ২০১০ খ্রিষ্টাব্দ থেকে জাল সনদে এমপিওভোগ করছেন। অধিদপ্তর সূত্র জানায়, বিষয়টি লিখিতভাবে এনটিআরসিএ কে জানিয়ে তার সনদটি যাচাই করে প্রতিবেদন পাঠাতে বলা হয়েছে। গত ২৮ অক্টোবর সনদ যাচাই প্রতিবেদন চেয়ে চিঠি এনটিআরসিএতে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here