অনলাইন ডেস্ক, দৈনিক শিক্ষাবার্তাঃ

দেশে দেশে নারীরা ক্ষমতায় থাকলে জীবনমান আরও উন্নত হতো: বারাক ওবামা
বিশ্বজুড়ে তরুণ নেতৃত্ব গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছে ওবামা ফাউন্ডেশন। ছবি: এএফপি

বিশ্বে আজ নারীদের ভূয়সি প্রশংসা চলছে কারন নারীরা আজ কোনো কিছুতেই পিছিয়ে নেই। নারীরা আজ দেশ ও পরিচালনা করছেন। নারীদের প্রশংসা করতে গিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, পৃথিবীর সব দেশে যদি পুরুষের বদলে নারীরা ক্ষমতায় থাকতেন, তাহলে বিশ্বব্যাপী মানুষের জীবনমান অনেক উন্নত হতো। ওবামা আরও বলেছেন, নারীরা ‘নিখুঁত’ নন ঠিকই, তবে তাঁরা তর্কাতীতভাবে পুরুষের চেয়ে ভালো।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সিঙ্গাপুরে ওবামা ফাউন্ডেশনের একটি অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেছেন ওবামা। সাবেক এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেছেন, পৃথিবীব্যাপী বিভিন্ন সমস্যার মূলে রয়েছেন ক্ষমতা আঁকড়ে রাখা বয়স্ক শাসকেরা।

নারীরা সরকার গঠন করলে কেমন হতো পৃথিবী, ক্ষমতায় থাকাকালে সেই বিষয়ে অনেকবার ভেবেছেন ওবামা। নিজের সেই ভাবনার কথা সবার সঙ্গে ভাগ করে নিয়েছেন তিনি, ‘আমি সব নারীর উদ্দেশে বলতে চাই, আপনারা নিখুঁত নন ঠিকই। কিন্তু এ বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই যে আপনারা আমাদের (পুরুষ) চেয়ে অবশ্যই ভালো। আমি শতভাগ নিশ্চিত, কেবল দুই বছরের জন্য যদি বিশ্বের প্রতিটি দেশে নারীরা ক্ষমতায় আসতেন, তাহলে আমরা পুরো পৃথিবীতেই ভিন্ন রকম পরিস্থিতি দেখতে পেতাম। নারীরা ক্ষমতায় এলে মানুষের জীবনযাত্রার মান অনেক উন্নত হতো।’

আবারও রাজনীতিতে ফিরতে চান কি না—এমন প্রশ্ন করা হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট ওবামাকে। জবাবে ওবামা বলেছেন, রাজনৈতিক নেতাদের সঠিক সময়ে সরে দাঁড়ানোই ভালো। ওবামা বলেছেন, ‘আপনি যদি পুরো বিশ্বের দিকে তাকান তাহলে দেখবেন, বয়স্ক মানুষেরাই বেশির ভাগ সমস্যার মূলে। বয়স্ক ব্যক্তিরা ক্ষমতা না ছাড়লে এমন সমস্যা হবেই।’

ব্যক্তিগত দর্শন থেকে রাজনীতিবিদদের জন্য একটি পরামর্শও দিয়েছেন দুই মেয়াদে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করা ওবামা, ‘রাজনৈতিক নেতাদের এটা মনে রাখা উচিত, তাঁরা একটি নির্দিষ্ট কাজ করতে এসেছেন, আজীবন ক্ষমতায় থাকার জন্য আসেননি।’

ক্ষমতা ছাড়ার পর থেকে বারাক ওবামা ও মিশেল ওবামা দম্পতি বিশ্বজুড়ে তরুণ নেতাদের নিয়ে কাজ করার জন্য ওবামা ফাউন্ডেশন গড়ে তুলেছেন। গত সপ্তাহে এই ফাউন্ডেশনের কাজে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে গিয়েছিলেন তাঁরা।