নড়াইলে ইউপি সচিবকে আটক করেছেন  ইউএনও  

0
85
উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধিঃ
সামাজিক নিরাপত্তা সহায়তার অর্থ স্ত্রীসহ পরিবারের সদস্যদের নামে উত্তোলন করে আত্মসাৎসহ ইউপি সদস্যদের স্বাক্ষর জাল করার অভিযোগে নড়াইলের কালিয়া উপজেলার জয়নগর ইউপি সচিব মো. মহিদুল ইসলামকে আটক করেছেন  ইউএনও মো. নাজমুল হুদা।
নড়াইলে ইউপি সচিবকে আটক করেছেন  ইউএনও  
উজ্জ্বল রায় জেলা নড়াইল প্রতিনিধি জানান, নড়াইলের জয়নগর ইউপির একজন সদস্য মো. কামরুল ইসলম কর্তৃক স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে দায়ের করা লিখিত অভিযোগের তদন্তকালে বৃহস্পতিবার দুপুরে তাকে আটক করা হয়। আটক ইউপি সচিবকে উপজেলার নড়গাতি থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।
অভিযোগের বিবরণে বলা হয়, জয়নগর ইউপি চেয়ারম্যান চৌধুরী আলাউদ্দিন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনাসহ নানাভাবে দুর্নীতি ও অনিয়মের মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ করে আসছেন।
ইউপি সদস্যদের না জানিয়ে এককভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে ভূমি হস্তান্তর ফিসের টাকা, সরকারের নির্ধারিত উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের টিআর, কাবিখা, কাবিটা, কর্মসৃজন প্রকল্প ও এডিপির বরাদ্দ করা অর্থ বিভিন্ন প্রকল্পের অর্থ, নিয়মবহির্ভূতভাবে ইউনিয়নের গ্রামগুলোতে ছয় হাজার পরিবারের কাছে বাড়ির হোল্ডিং নম্বর প্লেট বিক্রির ছয় লাখ টাকা, সরকারি করের টাকা, ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত ভিজিডির সুবিধাভোগীদের জমাকৃত টাকাসহ সামাজিক নিরাপত্তা সহায়তার টাকা এবং এলজিএসপির বরাদ্দ করা আট লাখ ৬৮ হাজার ৭৭৭ টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।
এছাড়া ইউপি সদস্যদের সাথে অসদাচরণের অভিযোগ করেন কামরুল ইসলাম।
স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় অভিযোগটির তদন্তভার কালিয়ার ইউএনওর ওপর ন্যস্ত করে। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে ওই ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে গিয়ে তদন্ত শুরু করেন ইউএনও। তদন্তকালে জয়নগর ইউপি চেয়ারম্যানসহ ইউপি সচিব মো. মহিদুলের বিরুদ্ধে সামাজিক নিরাপত্তা সহায়তা, ভিজিডি, বিধবাভাতা, বয়স্কভাতা ও মাতৃত্বকালীন ভাতার টাকা পরিবারের সদস্যসহ স্বজনদের নামে উত্তোলন করে আত্মসাৎ ও সরকারি অর্থ আত্মসাতের প্রমাণ মেলে। পরে তদন্ত কর্মকর্তা সচিবকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।
তবে জয়নগর ইউপি চেয়ারম্যান অভিযোগসমূহ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, একটি কুচক্রী মহল তার রাজনৈতিক সুনাম নষ্টসহ হীন স্বার্থ আদায়ের জন্য মিথ্যা ও বানোয়াট অভিযোগ করে তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
কালিয়ার ইউএনও মো. নাজমুল হুদা বলেন, তদন্তকালে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় ওই ইউপি সচিবকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।