দৈনিক শিক্ষাবার্তা পত্র‌িকার সাংবাদিক হতে চান ?

নিজস্ব প্রতিনিধি, দৈনিক শিক্ষাবার্তাঃ

১৭ নভেম্বর থেকে সারাদেশে শুরু হচ্ছে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা। এদিকে প্রধান শিক্ষকদের ১০ম ও সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতন বাস্তবায়নের দাবিতে আন্দোলন করছেন শিক্ষকরা। ১৩ নভেম্বরের মধ্যে বেতন বৈষম্য নিরসন না হলে সমাপনী ও বার্ষিক পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদের নেতারা। তবে, আজ শুক্রবার (৮ নভেম্বর) পরীক্ষা বর্জনের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছেন তারা। ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক  আনিসুর রহমান দৈনিক শিক্ষাবার্তা কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সাক্ষাৎ করার শর্তে পরীক্ষা বর্জনের কর্মসূচি বাতিল করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

পরিষদের আহ্বায়ক আনিসুর রহমান দৈনিক শিক্ষাবার্তা কে বলেন, সারাদেশের লাখ লাখ কোমলমতি শিক্ষার্থীর কথা ও তাদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে আমরা পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা থেকে ফিরে এসেছি। এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে দেখা করে আমরা প্রধান শিক্ষকদের ১০ম ও সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতন বাস্তবায়নের যৌক্তিকতা তুলে ধরতে চাই। সে আশ্বাস আমরা পেয়েছি। সে প্রেক্ষিতে পরীক্ষা বর্জনের কর্মসূচি বাতিল করছি।

আজ শুক্রবার সকালে দাবি আদায়ে অভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণায় প্রাথমিক শিক্ষক নেতাদের দু’পক্ষ আলোচনায় বসলেও তা ফলপ্রসু হয়নি। সহকারী শিক্ষক মহাজোটের নেতারা আলাদা প্লাটফর্মে থেকে অভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণার আহ্বান জানান। এ দিকে ঐক্য পরিষদের নেতারা একই প্লাটফর্মে এসে ঐক্যবদ্ধ কর্মসূচি ঘোষণার আহ্বান জানান।

সভাশেষে উভয় পক্ষের শিক্ষক নেতারা দৈনিক শিক্ষাবার্তা কেপ্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা বর্জনের কর্মসূচি প্রত্যাহার শিক্ষকদের জানান, পরবর্তীতে এ বিষয়ে জানানো হবে।

এদিকে  ঐক্য পরিষদের নেতারা জানান, আমরা তাদের সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করেছি। তারা কিছু জানাননি। এদিকে সরকারের পক্ষথেকে প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাতের আশ্বাস পেয়েছি। তাই আমরা পরীক্ষা বর্জনের কর্মসূচি প্রত্যাহার করছি।  তারা আরও জানান, আগামী ১৭ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ এবং প্রধান শিক্ষকদের ১০ম ও সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে বেতনের দাবি পূরণ না হলে পরবর্তীতে লাগাতার কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

আপনার মন্তব্য

Please enter your comment!
Please enter your name here