শ্রাবণের এমন ধারা থাকতে পারে আরও ৩ দিন
সড়ক যেন নদী, মোটরসাইকেল যেন স্পিডবোট। টানা বৃষ্টিতে এই হাল।টিকাটুলি এলাকা, ঢাকা, ২১ জুলাই। ছবি: আশিক রহমান

শ্রাবণের মেঘমালা জড়ো হলো আকাশে। তারপর ভারী আকাশ থেকে অবিরাম বৃষ্টির ঝরো ঝরো চলছেই। এই একটু থামে, আবার ঝেঁপে নামে। গত দুদিনের আবহাওয়ার চিত্র এ রকমই। আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, বৃষ্টির এমন ধারা আরও তিন দিন থাকতে পারে।

সড়ক যেন নদী, মোটরসাইকেল যেন স্পিডবোট। টানা বৃষ্টিতে এই হাল।টিকাটুলি এলাকা, ঢাকা, ২১ জুলাই। ছবি: দীপু মালাকার
বৃষ্টির কারণে জলাবদ্ধতায় নাকাল জনজীবন। টিকাটুলি এলাকা, ঢাকা, ২১ জুলাই। ছবি: আশিক রহমান।

বৃষ্টির কারণ সম্পর্কে আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সারা দেশে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় রয়েছে। বঙ্গোপসাগরের উত্তরাংশে প্রবল সক্রিয় অবস্থায় রয়েছে। এ কারণেই দেশের সব জায়গাতেই ভারী বৃষ্টি হচ্ছে।

সকালে আবহাওয়া দপ্তরের ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, সিলেট, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে।

টানা বৃষ্টির কারণে তাপমাত্রা খুব একটা বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা নেই। অবাহাওয়াবিদরা বলছেন, শ্রাবণের এমন ধারা চলবে আরও টানা তিন দিন।

আবহাওয়া দপ্তরের সকালের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, গতকাল সোমবার সকাল ৬টা থেকে আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত রাজধানী ঢাকায় বৃষ্টি হয়েছে ১১০ মিলিমিটার।

ছয় ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে কক্সবাজার জেলায়, ৫১ মিলিমিটার। এ ছাড়া কিশোরগঞ্জের নিকলীতে ৩৩, ময়মনসিংহে ৩৭, কুমিল্লায় ৩১, নোয়াখালীর মাইজদী কোর্টে ৩০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে আবহাওয়া দপ্তর।

আবহাওয়াবিদ আব্দুল মান্নান দৈনিক শিক্ষাবার্তা কে বলেন, দুই বা তার বেশি দিন বৃষ্টি হতে পারে। এরপর কয়েক দিন বৃষ্টির মাত্রা কমবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here