সাকিব আল হাসানকে ওজন কমানোর পরামর্শ দিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর নিজ হাতে তৈরি সুস্বাদু খাবার গেছে সাকিব আল হাসানের বাসায়। সাকিব-পত্নী উম্মে আহমেদ শিশির খাবারের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দিয়ে সেই সুঘ্রাণ কিছুটা হলেও ছড়িয়ে দিতে পেরেছেন আপামর নাসারন্ধ্রে। কিন্তু আপনি কি জানেন, এত সব সুস্বাদু খাবারে ‘নিষেধাজ্ঞা’ আছে সাকিবের জন্যই!

সাকিব আল হাসানকে ওজন কমাতে বললেন প্রধানমন্ত্রী
গত পরশু প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছেন সাকিব ও তাঁর পরিবার। ছবি: সাকিব আল হাসানের ফেসবুক

‘নিষেধাজ্ঞা’টা একরকম প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকেই। না, প্রধানমন্ত্রী সাকিবকে মজার মজার খাবার খেতে সরাসরি নিষেধ করেননি। তবে এক বছরের জন্য আইসিসির নিষেধাজ্ঞার মধ্যে থাকা সাকিবের জন্য প্রধানমন্ত্রীর যে পরামর্শ, সেটি মানলে খাবারদাবারের ক্ষেত্রে এখন থেকে তাঁকে একটু সংযত হতেই হবে। প্রধানমন্ত্রী সাকিবকে বলেছেন, ‘তোমার ওজন তো বেড়ে গেছে! খাওয়াদাওয়া বন্ধ করো।’

সাকিব আল হাসানের বাসায় প্রধানমন্ত্রী খাবার পাঠিয়েছেন গতকাল। তার এক দিন আগে স্ত্রী শিশির আর মেয়ে আলাইনাকে নিয়ে সাকিব প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে গিয়েছিলেন তাঁর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে। যথারীতি প্রধানমন্ত্রীর টেবিলজুড়ে মজার মজার সব খাবার। সাকিবের স্ত্রী শিশির মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলছিলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অনেক ভালো রান্না করেন। কিন্তু আমি তেমন কিছু খাচ্ছিলাম না দেখে নিজ হাতে একটা বিশেষ আইটেম বানিয়ে খাওয়ালেন আমাকে।’

শিশিরকে নিজের হাতে বানানো খাবার খাওয়ালেও সাকিবকে খাবারদাবারের ব্যাপারে একটু শাসনই করেছেন প্রধানমন্ত্রী। শিশির বলছিলেন, ‘সাকিবকে মানণীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ওজন এত বাড়িয়েছ কেন? ওজন কমাও। খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করো। ফিটনেস ঠিক রাখো।’

আপাতত যেহেতু খেলার মধ্যে নেই, সাকিব এখনই খাওয়াদাওয়ায় নিয়ন্ত্রণ আনতে চাইছেন না। প্রধানমন্ত্রীকে নাকি হাসতে হাসতে তিনি সেটি বলছেনও। এই প্রতিবেদককে কথাটা বলার সময় হাসছিলেন শিশিরও, ‘ও (সাকিব) তখন বলেছে, আর মাত্র কয়েকটা দিন একটু খাব। এরপর ফিটনেস শুরু। আর খাব না।’ এমনি রসিকতার মধ্য দিয়ে সাকিব আল হাসানকে ওজন কমাতে পরামর্শ দিলেন প্রধানমন্ত্রী।