স্টাফ রিপ‌োর্টারঃ দ‌ৈনিক শ‌িক্ষাবার্তাঃ

নিবন্ধনধারী ভাই ও বোনেরা, অবশেষে সব জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়‌ে ১৮-১২-২০১৮ ইং রোজ মঙ্গলবার Ntrca গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছ‌ে। আবেদনের শেষ তারিখ ২ জানুয়ারি। ৩৯৫৩৫জন বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের অনালাইনে আবেদন শুরু ১৯ ডিসেম্বর। ক‌িন্তু দুঃখের বিষয় ৩৫+নিবন্ধনধারীরা উক্ত গণবিজ্ঞপ্তিতে আবেদনের সুযোগ পাচ্ছে না। তাহলে এখন আপনাদের করণীয় কী ?

গণবিজ্ঞপ্তি দেখতে এখানে ক্ল‌িক করুন।

আপনি একজন শিক্ষক নিবন্ধিত হিসেবে বয়স ৩৫ বছর এ পদার্পণ করেছেন? বয়স ৩৫ বছর বা তার বেশি হয়ে থাকলে ৩৫ এর নতুন রিটে জরুরীভাবে অবশ্যই আপনাকে অংশগ্রহণ করতে হবে। নতুবা ২০১৮ জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী আপনার সার্টিফিকেট ইতোমধ্যে বাতিল হয়ে গেছে। আপনি নিয়োগের জন্য আবেদনই করতে পারবেন না! তাই হাইকোর্টে রিট করেই পূর্বের রায়ের আলোকে ২০১৮ জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা চ্যালেঞ্জ করে আপনার শিক্ষক নিবন্ধন সার্টিফিকেট বৈধ করতে হবে। আর এতে ১০০% সফল হওয়া সম্ভব। হাইকোর্টের বিশিষ্ট সিনিয়র আইনজীবিদের সাথে আলোচনা করে জয়ের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছি।

বয়স নির্ধারিত হয় নিয়োগ পরীক্ষার আগে।পরীক্ষার পর বয়স নির্ধারিত হয় না।নিবন্ধিতরা ২ ও ৩ ধাপে পরীক্ষা দিয়ে মেধাতালিকায় অবস্থান করছে।মেধাতালিকার পর বয়স নির্ধারিত হতে পারে না।

আদালত নিবন্ধিতদের বয়স নির্ধারণ করতে বলেনি,বলেছে এন্ট্রি প্রসেসে বয়স নির্ধারণ করতে।বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগে এন্ট্রি প্রসেস শুরু হয় নিবন্ধনের আবেদনের মাধ্যমে।

আদালত ৫ নং নির্দেশনায় নিবন্ধিতদের মেরিললিস্টের মেধাক্রমানুসারে নিয়োগ দিতে বলেছে।মেরিটলিস্টে বয়স নির্ধারণ করে নিয়োগ দিতে বলেনি।

কারণ পুর্বের ২০১০ থেকে ২০১৩ জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালায় এবং শিক্ষক নিবন্ধিতদের কোনো আইনে যারা ইতোমধ্যে সার্টিফিকেট পেয়ে গেছেন তাদের জন্য বয়স সীমাবদ্ধ ছিলো না। এছাড়া ১-১২ তমের যে ১৬৬ টি মামলার রায় ২০১৭ সালের ১৪ ডিসেম্বর দেওয়া হয়, সেখানে ৭ টি জাজমেন্ট রায়ের ১ম টি ছিলো নিম্নরূপঃ

(১) চাকরি না পাওয়া পর্যন্ত শিক্ষক নিবন্ধন সার্টিফিকেটের মেয়াদ বহাল থাকবে বলে বিচারক মহোদয় নির্দেশনা দিয়েছেন। আর ৭ নং পয়েন্টে অবজার্ভেশন দিয়েছিলেন সেটা হলো নিম্নরূপঃ

(৭) শিক্ষক নিবন্ধিতদের জন্য এন্ট্রি প্রসেসে সরকারের কোনো বয়স লিমিটেশন করা নেই। তাই বিচারক মহোদয় বলেছেন, সরকারের উচিত শিক্ষক নিবন্ধিতদের আবেদন গ্রহণ করার ক্ষেত্রে একটা বয়স লিমিটেশন করা, করলে ভালো হয় বলে বিচারক মহোদয় উল্লেখ করেছিলেন, সেটা বয়স ৩৫ বছর কিনা তাও বিচারক মহোদয় নির্ধারণ করে দেন নি । আর এরই পরিপ্রেক্ষিতে খামখেয়ালীপনাভাবে কোর্টের আইন অমান্য করে শিক্ষামন্ত্রণালয় শিক্ষক নিবন্ধিতদের নিয়োগের ক্ষেত্রে বয়স ৩৫ বছর করে ২০১৮ জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা প্রকাশ করেছে। হাইকোর্ট বললো নিবন্ধনের আবেদনের ক্ষেত্রে বয়স নির্ধারণ করলে ভালো হয়, আর শিক্ষামন্ত্রণালয় নিয়োগের জন্যই বয়স ৩৫ বছর করে আবশ্যকীয় নীতিমালা প্রনয়ন করলো। হাইকোর্ট পরামর্শ দিল নিবন্ধনের ক্ষেত্র‌ে বয়স নির্ধারন করার সেখানে তা না করে শিক্ষামন্ত্রলালয় নিয়োগের ক্ষেত্র‌ে বয়স ৩৫ বছর করলো। এটি একপ্রকার অন্যায় এবং কোর্ট অবমাননা ছাড়া আর কিছু নয়। তাই এরই আলোকে রিটের মাধ্যমে আইন চ্যালেঞ্জ করে ১০০% জয় পাওয়া আমাদের সম্ভব।এছাড়া উক্ত আইন দ্বারা বয়স ৩৫ শিক্ষক নিবন্ধিত যারা ক্ষতিগ্রস্ত তাদের নিয়োগের নির্দেশনা পাওয়াও কোর্ট থেকে এখন খুবই সহজ বিষয়। কারণ সম্প্রতি নভেম্বরের ৫ তারিখে হাইকোর্ট ১৩ তম রিটকারীদের মামলার রায়ে শুধুমাত্র রিটকারীদের নিয়োগের জন্য রায় হয়েছে। তাই ৩৫+ রিটকারী হিসেবে সরাসরি নিয়োগের জন্য সুপারিশ করবে বলে হাইকোর্টের আইনজীবিরা খুবই আশাবাদী, অর্থাৎ চাকরি এখন হাতের মুঠোয়! আপনারা এগিয়ে আসলেই তা সম্ভব।

প্রতিষ্ঠান ও বিষয়ভিত্তিক শূণ্য পদের তালিকা এখানে।

আবারো বলি এ রিটে ২০১৮ জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা চ্যালেঞ্জ এবং অংশগ্রহণকারী রিটকারীদের সরাসরি নিয়োগের সুপারিশ চাওয়া হবে ১৩ তমদের রায়ের আলোকে। ইনশাল্লাহ রিটের মাধ্যম‌ে ন‌িয়োগ কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ বা স্টে করা হব‌ে রায় না হওয়া পর্যন্ত। আজক‌ের দ‌িন পর্যন্ত রিট সদস্য ২০৬ জন।

নতুন প্রার্থী আরো যারা আমার মামলায় অংশগ্রহণ করতে চেয়েছেন তারা দ্রুত যোগাযোগ করুন। হাতে সময় একদমই কম। মামলার ফাইলিং ইনশাল্লাহ শেষ করা হয়েছে।

৩৫+নিবন্ধন সনদধারীদের নিয়োগ পেতে ২০১৮ জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা চ্যালেঞ্জ করে নিবন্ধন সার্টিফিকেট বৈধ করতে হবে। কাগজপত্র ও টাকা জমা ন‌েবার শ‌েষ তারিখঃ ২৬-১-২০১৯ ইং রাত ৯ টা পর্যন্ত।

বয়স ৩৫ যারা রিটে অংশগ্রহণ করবেন না, তাদের সার্টিফিকেট বাতিল হয়ে যাবে, নিয়োগ পাবেন না। যেহেতু আপনারা টাকা খরচ করছেন তাই, ৩৫ + বয়সীদের রিটে যারা অংশগ্রহণ করবেন শুধু তাদের সার্টিফিকেট বৈধ ও নিয়োগের নির্দেশনা চাওয়া হবে। এ রিটের দ্বারা নিয়োগ প্রক্রিয়াও সাময়িক স্থগিত করা হবে।

যারা এ রিট মামলায় অংশগ্রহণ করতে চেয়েছেন, তারা নিম্ন‌োক্ত ইমেইলে ডকুমেন্টস পাঠাইয়া সাথে সাথে আর্থিক খরচ ৩০৬০/- টাকা কনফার্ম করুন ।

আগে পাঠালে সিরিয়ালেও আগে থাকবেন। যা যা পাঠাবেনঃ

১। নিবন্ধন সনদের স্ক্যান কপি,১টি থাকলে ১টি ,২টি থাকলে ২টিই পাঠাবেন।

২। জাতীয় পরিচয় পত্র‌ের স্ক্যান কপি।

Email: kamrulh380@gmail.com

বিকাশ(পারসোনাল): 01787536156

ডাচ বাংলা ব্যাংক(রকেট): 018826250742

ধন্যবাদন্তে

মোঃ কামরুল ইসলাম, আহবায়ক ও সমন্বায়ক

৩৫+ নিবন্ধনধারী ঐক্য পরিষদ।

ফোন নাং-01787536156

আপনার মন্তব্য

Please enter your comment!
Please enter your name here