হিন্দু রেজিস্ট্রার অনুযায়ী বিয়ে। এরপর জয়শ্রী পাল জানতে পারেন স্ত্রী সন্তানকে ভারতে রেখে অবিবাহিত সেজে তাকে বিয়ে করা হয়েছে। মানিকগঞ্জ জেলার বিচারপতি নুরুল ইসলাম কলেজের ইংরেজী প্রভাষক নারায়ন চন্দ্র মন্ডলের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করেছেন তার স্ত্রী জয়শ্রী পাল। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তদন্তের নির্দেশও দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)।

তথ্য গোপন করে বিয়ে
অভিযুক্ত ইংরেজী প্রভাষক নারায়ন চন্দ্র মন্ডল।

অধিদপ্তরের আদেশে বলা হয়, অভিযোগটি সরেজমিন তদন্ত করে সুস্পষ্ট মতামতসহ প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য নির্দেশনা দেয়া হলো। তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য ঢাকা অঞ্চলের পরিচালক ও সহকারী পরিচালককে (কলেজ) তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে।

জানতে চাইলে জয়শ্রী পাল বলেন, গত ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ হিন্দু বিবাহ রীতি অনুযায়ী নারায়ন চন্দ্র মন্ডলের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এরপর জানতে পারি নারায়ন তার প্রথম স্ত্রী-সন্তান ভারতে রেখে এ তথ্য গোপন করে অবিবাহিত সেজে আমাকে বিয়ে করেছে।

তিনি আরো বলেন, এ বিষয়ে কলেজের সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দিয়েছি। কিন্তু এরপরও কোনো প্রতিকার না পেয়ে আমি মাউশিতে অভিযোগ করেছি। কর্তৃপক্ষ এ ঘটনায় ব্যবস্থা নিচ্ছে জানিয়ে তিনি ধন্যবাদ জানান।

জানতে নারায়ন চন্দ্র মন্ডলের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানা যায়, নারায়ন চন্দ্র মন্ডল কিছুদিন তার নম্বর বন্ধ রেখেছেন। বর্তমানে কলেজটির ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শাশ্বত কুমার শীলের কাছেও তার মুঠোফোন নম্বর নেই।

এ বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শাশ্বত কুমার শীল দৈ‌নিক শিক্ষাবার্তা কে বলেন, এ ঘটনাটি শতভাগ সত্যি। আমি নিজেও জানি। কিন্তু এখানে আসলে আমাদের কোনো দোষ নেই। এ বিষয়ে অনেকবার আমি নারায়নকে বোঝানোর চেষ্টা করেছি, কিন্তু সে (নারায়ন) আমাকে জানিয়েছে মেয়েটি তাকে ব্লাকমেইল করছে। কিন্তু এটি আমার কাছে বিশ্বাসযোগ্য মনে হয়নি। তবে দ্বিতীয় বিয়ের ঘটনাটি সম্পূর্ণ সত্য।

জয়শ্রী পালের অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমাদের কলেজ সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা। এ বিষয়ে তিনি কোনো কার্যকর উদ্যোগ নেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here