যশোরে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরো ৩০৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এটিই জেলায় একদিনের সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এছাড়া মারা গেছেন ৪ জন।যশোরে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড ৩০৫, মৃত্যু ৪

উচ্চঝুঁকির কারণে যশোরের পাঁচ পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়নে লকডাউন সম্প্রসারণ করা হয়েছে। তবে লকডাউন কার্যকরভাবে মানছে না সাধারণ মানুষ।

প্রশাসন বলছে, লকডাউন কার্যকর করতে আরো কঠোরতা আরোপ করা হবে। সেইসঙ্গে জনগণকেও সচেতন হওয়ার পরামর্শ তাদের।

যশোর স্বাস্থ্যবিভাগের তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় ৬৪৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৩০৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৪৭ শতাংশ। মারা গেছেন ৪ জন। এদের মধ্যে দুইজন করোনা রোগী এবং অপর দুইজন করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ১৩৭ জন।

যশোরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজেস্ট্রেট কাজী মো. সায়েমুজ্জামান দৈ‌নিক শিক্ষাবার্তা কে বলেন, করোনার শনাক্তের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে করোনা ওয়ার্ডের ৮০ সিটের বিপরীতে ৯২ জন এবং ইয়োলো জনের ২২ সিটের বিপরীতে ৪৫ জন ভর্তি আছে। করোনা রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য হাসপাতালে আরো ৫০টি বেড প্রস্তুত করা হচ্ছে।

এছাড়া বেসরকারিভাবে করোনা ডেডিকেটেট হসপিটাল প্রস্তুত করা হয়েছে, যেখানে আরো ৩০টি বেড প্রস্তুত করা হচ্ছে। সদর হাসপাতালে করোনা রোগীর বৃদ্ধি পেলে হস্তন্তর শুরু করা হবে বলে জানান মো. সায়েমুজ্জামান।