বরগুনার একটি আলিম মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে বিদায়ী অনুষ্ঠানে ১৫ লাখ টাকার গাড়ি উপহার দিয়েছেন প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। বরগুনা সদর উপজেলার ঢলুয়া ইউনিয়নের চড়কগাছিয়া এতিম মঞ্জিল আলিম মাদ্রাসার বিদায়ী অধ্যক্ষ সুলতান মাহমুদকে এ গাড়ি উপহার দেয়া হয়।

শিক্ষকের বিদায়ে শিক্ষার্থীদের ১৫ লাখ টাকার গাড়ি উপহার
বিদায়ী অধ্যক্ষ সুলতান মাহমুদের হাতে গাড়ির চাবি তুলে দিচ্ছেন প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা।

আল মাহমুদ প্রাক্তন ছাত্র ফোরামের ব্যানারে এ বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বিদায়ী অধ্যক্ষ সুলতান মাহমুদ ওই মাদ্রাসায় ৪২ বছর শিক্ষকতা করার পর সম্প্রতি তিনি অবসরে যান। এ উপলক্ষে গতকাল শনিবার মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে এক বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে ছাত্ররা বলেন, অধ্যক্ষ সুলতান মাহমুদ দীর্ঘদিন ধরে প্রতিষ্ঠানটিতে শিক্ষকতা করেন। তিনি শিক্ষার্থীদের সন্তানের মতো ভালোবেসে জ্ঞানের আলো ছড়িয়েছেন। তার বদৌলতেই প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন সময়ে দেশের সেরা ফলফল অর্জনের গৌরব লাভ করেছে।

শিক্ষকের বিদায়ে শিক্ষার্থীদের
প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের উপহার দেওয়া সেই গাড়ি।

হাইকোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার হারুর-উর-রশীদ বলেন, স্যারকে আমরা বাবার মতো শ্রদ্ধা করি। তিনি আমাদের সন্তানের মতো করে শিক্ষার আলোয় আলোকিত করেছেন। মাদ্রাসাটিকে একদিকে যেমন টেনে তুলেছেন পরম যত্নে, ঠিক তেমনি শিক্ষার্থীদের ভালো মন্দে সবসময় পাশে থেকেছেন। আমরা স্যারের জন্য গর্বিত।

নলী চড়কগাছিয়া এতিম মঞ্জিল আলীম মাদ্রাসার বিদায়ী অধ্যক্ষ সুলতান মাহমুদ আবেগ আপ্লুত হয়ে বলেন, একজন শিক্ষকের জন্য পরম পাওয়া একজন ছাত্রকে মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা। এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের আমি সন্তানের মতো দেখেছি। মাদ্রাসাটিকে আমি মায়ের মতো মনে করেছি। বিদায়ের এ ক্ষণে আমি অভিভূত, আতি আপ্লুত। আমি তাদের দীর্ঘায়ু ও মঙ্গল কামনা করি।

উল্লেখ্য, চড়কগাছিয়া এতিম মঞ্জিল আলীম মাদ্রাসাটি বরগুনা সদর উপজেলার ঢলুয়া ইউনিয়নের প্রত্যন্ত নলী চরকগাছিয়া এলাকায় অবস্থিত। ১৯৭৫ সালে মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৭৮ সালের ডিসেম্বর মাসে সুলতান মাহমুদ মাদ্রাসায় শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here