নিজস্ব প্রতিনিধি, দৈনিক শিক্ষাবার্তাঃ

মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন আমাদের জিডিপির অন্তত চার শতাংশ শিক্ষায় বিনিয়োগ করতে হবে। শিক্ষার মানোন্নয়নের জন্য আমরা সে বিনিয়োগ আরও বাড়াবো। চতুর্থ শিল্প বিল্পবের জন্য শিক্ষার্থীদের তৈরি করতে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের জন্য বিনিয়োগ প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে এখন সেই লক্ষ্য কাজ করা হচ্ছে। শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সাবেক শিক্ষার্থীদের অ্যালামনাই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তেব্যে এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

শিক্ষার মানোন্নয়নের জন্য বিনিয়োগ বাড়ানো হবে : শিক্ষামন্ত্রী

ডা. দীপু মনি বলেন, শিক্ষার পরিবেশ আনন্দময় হতে হবে, যাতে শিক্ষার চাপে আমাদের শিক্ষার্থীদের আনন্দ তিরোহিত না হয়। শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষক প্রশিক্ষণ, মানসম্মত শিক্ষকের বিকল্প নেই। এসময় চতুর্থ শিল্প বিল্পব মোকাবেলায় অটোমেশন, রোবটিক্স, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইত্যাদি বিষয়ের ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, এখন সময় শিক্ষার গুণগত মানের দিকে নজর দেয়ার। ২০১৮ খ্রিষ্টাব্দের নির্বাচনী ইশতেহারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা করেছেন শিক্ষার মানোন্নয়ন হবে আমাদের অন্যতম লক্ষ্য। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে; চতুর্থ বিপ্লবের প্রয়োজন পূরণ ও ২১ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় মানবসম্পদ উন্নয়ন সব চাইতে জরুরি।

শিক্ষামন্ত্রী উল্লেখ করে, গবেষণা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সেই গবেষণায় সরকার বিনিয়োগ করছে। আমি শিক্ষকদের বলবো এই গবেষণার কাজে আরও বেশি মনোযোগী হোন। পত্র পত্রিকায় কিছু র‍্যাংকিংয়ের কথা বলেন, বাকিগুলো বলেন না। ইতোমধ্যে আমাদের প্রায় ১৫টি বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্ব র‍্যাংকিংয়ে ভালো অবস্থানে আছে। আমি বিশ্বাস করি আগামী দিনে আমাদের বাকি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ভালো অবস্থানে পৌঁছবে। তিনি আরও বলেন, আজকে আমাদের ভাষার জন্য রক্ত দিতে হবে না, আজকে আমার স্বাধীনতার জন্য রক্ত দিতে হবে না। দেশকে উন্নয়নের দিকে নিয়ে যাওয়ার জন্য  আজকে আমার প্রয়োজন একটু মনোনিবেশ করে নিজের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করা।

ডা. দীপু মনি বলেন, দেশের ১৩টি শতবর্ষী সরকারি কলেজ হবে সেন্টার অব এক্সিলেন্স। রাজশাহী কলেজও তার মধ্যে থাকবে। রাজশাহী কলেজে ছাত্রীনিবাস খুব দরকার। মেয়েদের অনেক কষ্ট করে থাকতে হচ্ছে।  একটা প্রশাসনিক ভবনও দরকার। একটা দশতলা ছাত্রীনিবাস হবে।

কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মহা. হবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, নাটোর-৪ সংসদ সদস্য আব্দুল কুদ্দুস, রাজশাহী-৩ আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন, সংরক্ষিত আসনের সদস্য আদিবা আনজুম মিতা।

দু’দিন ব্যাপী অ্যালামনাই অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী দিনে বেলা ১১টার দিকে ক্যাম্পাস থেকে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিতে সাবেক শিক্ষার্থীরা অংশ নেন এবং শহর ব্যাপি প্রদক্ষিণ করেন।