অনলাইন র‌িপোর্টার || দ‌ৈনিক শিক্ষাবার্তাঃ

শ্রীলঙ্কায় সিরিজ বোমা হামলায় নিহত আওয়ামী শ্রীলঙ্কা থেকে জায়ানের মরদেহ আসবে বুধবার।লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের নাতি জায়ান চৌধুরীর (৮) মরদেহ ফিরিয়ে আনার সব আনুষ্ঠানিকতা সোমবার সম্পন্ন করা সম্ভব হয়নি। তাই মঙ্গলবারের পরিবর্তে আগামী বুধবার (২৪ এপ্রিল) তার মরদেহ দেশে আনা হবে।

সোমবার রাতে আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, জায়ান চৌধুরীর মরদেহ বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় বিমানযোগে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবে। সেখান থেকে মরদেহ সরাসরি বনানী ২ নম্বর রোডের বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হবে। এরপর চেয়ারম্যান বাড়ি মাঠে জানাজা শেষে মরদেহ বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে।

এর আগে সকালে শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন জানিয়েছিলেন, জায়ান চৌধুরীর মরদেহ মঙ্গলবার দেশে আনা হবে। তবে শেখ সেলিমের জামাতা মশিউল হক চৌধুরী সেখানকার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকায় তাকে এখনই দেশে আনা হচ্ছে না। তিনি পায়ে গুরুতর আঘাত পেয়েছেন।

ইস্টার সানডের প্রার্থনার মধ্যে গির্জা ও হোটেল মিলিয়ে আটটি স্থানে বোমা হামলায় রোববার রক্তাক্ত হয় শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো। এর একটি পাঁচতারা হোটেলে দুই ছেলে ও স্বামীকে নিয়ে ছিলেন শেখ সেলিমের মেয়ে শেখ আমেনা সুলতানা সোনিয়া।

জায়ানের বাবা মশিউল হক চৌধুরী প্রিন্স আহত হয়ে কলম্বোর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাংসদ শেখ সেলিম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফুপাতো ভাই।

দুই ছেলে ও স্বামীকে নিয়ে শ্রীলঙ্কায় ঘুরতে যাওয়া শেখ সেলিমের মেয়ে শেখ আমেনা সুলতানা সোনিয়া দেশটির একটি পাঁচতারকা হোটেলে ছিলেন। হামলার সময় শেখ আমেনা ছোট ছেলে জোহানকে নিয়ে হোটেলটিতে তাদের কক্ষে ছিলেন।

আর নিচতলার একটি রেস্তোরাঁয় সকালের নাস্তা করতে গিয়েছিলেন আমেনার স্বামী প্রিন্স ও তাদের বড় ছেলে জায়ান চৌধুরী। বোমা হামলায় প্রিন্স আহত হন এবং ছেলে জায়ান নিখোঁজ হয়। পরে জায়ানের মৃত্যু খবর আসে।ঘটনার পর রোববারাই শেখ সেলিমের পরিবারের সদস্যরা শ্রীলঙ্কা যান।

এদিকে, শ্রীলঙ্কায় হামলার পর পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম রোববার (২১এপ্রিল) দুপুরে এক ব্রিফিংয়ে বলেছিলেন, বোমা হামলার ঘটনার পর থেকে এক শিশুসহ দুই বাংলাদেশির খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। তবে তাদের নাম-পরিচয় তিনি সে সময় প্রকাশ করেননি।

ব্রুনেই সফররত শেখ হাসিনা সেখানে প্রবাসীদের দেওয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বক্তব্যে নিজের স্বজনদের বোমা হামলার শিকার হওয়ার কথা প্রথম জানান।

তিনি বলেন, “শেখ সেলিমের মেয়ে, জামাই ও দুই বাচ্চা নিয়ে শ্রীলঙ্কায় ছিল। সেখানে মেয়ের জামাই প্রিন্স। ছেলে সাড়ে আট বছর। ওরাও গিয়েছিল রেস্টুরেন্টে, সেখানে বোমা পড়েছে।

উল্লেখ্য, রোববার ইস্টার সানডের প্রার্থনার মধ্যে গির্জা ও হোটেল মিলিয়ে আটটি স্থানে বোমা হামলায় রক্তাক্ত হয় শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো। হামলায় এখন পর্যন্ত ২৯০ জন মারা যায়। আহতের সংখ্যা পাঁচ শতাধিক। নিহতদের মধ্যে অন্তত ২৭ জন বিদেশি নাগরিক রয়েছেন।